১৬ বছর বয়সী এক ফিলিস্তিনি কিশোরকে গুলি করে হত্যা করেছে ইসরায়েলি সেনারা। বুধবার ইসরায়েলের দখল করা ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে সংঘর্ষ চলাকালে এই ঘটনা ঘটে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানা যায়। পাশাপাশি এই সপ্তাহের শুরুর দিকে ফিলিস্তিনি এক বন্দুকধারীর গুলিতে আহত এক ইসরায়েলি কিশোর আজ মারা গেছে।

ইসরায়েলি সেনাবাহিনী জানায়, অভিযুক্ত ওই ফিলিস্তিনি বন্দুকধারীকে খুঁজতে ইসরায়েলি সৈন্যরা ওই এলাকায় তল্লাশি চালায়, যিনি পশ্চিম তীর মোড়ে গুলি করে দুই ইসরায়েলিকে গুরুতর আহত করেছিলেন। আহতদের মধ্যে বুধবার রাতে ১৯ বছর বয়সী একজন মারা গেছেন বলে দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গ্যান্টজ টুইটারে জানিয়েছেন।

আরও জানানো হয়, বুধবার গভীর রাতে নাবলাসের দক্ষিণে ফিলিস্তিনের বেইটা গ্রামের কাছে সৈন্যরা মোলোটভ ককটেল ছুড়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র রয়টার্সকে জানান, ‘সৈন্যরা সন্দেহভাজনদের থামাতে গুলি চালিয়ে অভিযান পরিচালনা করে।’ তবে ওই কিশোর নিহতের ঘটনা তদন্ত করা হবে বলে জানান তিনি।

বেইটা গ্রামের বাসিন্দারা জানান, গত কয়েক রাতে পশ্চীম তীরের গ্রামগুলোর প্রবেশ মুখে ফিলিস্তিনি ও ইসরায়েলি সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

ইসরায়েলি নিরাপত্তা সংস্থা শিন বেট জানিয়েছে, অভিযানে ওই সন্দেহভাজন ফিলিস্তিনিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি ফিলিস্তিনের তুরমাস আয়া গ্রামের বাসিন্দা বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। শিন বেট আরও জানায়, ওই ব্যক্তি কোনো জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িত ছিলেন না।

ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ১৬ বছর বয়সী ওই কিশোরের মৃত্যুতে এক বিবৃতিতে বলেন, ওই কিশোরকে গুলি করা ছাড়াও বুধবার সংঘর্ষের সময় পিছন থেকে দ্বিতীয় আরও এক ফিলিস্তিনিকে গুলি করা হয়েছে। তিনি বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালে মধ্যপ্রাচ্য যুদ্ধের সময় ইসরায়েল পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেম দখল করে।