ফিলিস্তিনের গাজা থেকে দখলদার ইসরায়েলের ছয়টি বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট হামলা চালানো হয়েছে। এসব হামলায় হতাহত বা কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা জানা যায়নি। বুধবার (১৯ মে) এ খবর প্রকাশ করে পার্সটুডে।

হামাসের কাসেম ব্রিগেড বিবৃতিতে জানায়, তারা ইসরায়েলের হাতসুর, হাতসারিম, নিফাতিম, তেল নুফ, বিলমাখিম ও র্যামন ঘাঁটিতে রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে।

এদিকে, টানা দশম দিনের মতো বুধবারও গাজায় ব্যাপক হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। এদিনও ফিলিস্তিনিদের বেশ কয়েকটি ভবন পুরোপুরি গুঁড়িয়ে দিয়েছে দখলদাররা। এছাড়া তিনটি মসজিদ পুরোপুরি ধ্বংস করে দেয়া হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আরও ৪০টি মসজিদ। বিমান ও ট্যাংক নিয়ে হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েল।

ইসরায়েলের হামলায় এখন পর্যন্ত ২১৯ ফিলিস্তিনি প্রাণ হারিয়েছেন। এর মধ্যে ৬৩ শিশু রয়েছে।

জাতিসংঘের হিসাবে, গাজায় ইসরায়েলের অব্যাহত হামলায় ৫২ হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনি ঘরহারা হয়েছেন।

এদিকে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল দুই পক্ষকে মানবাধিকার আইন লঙ্ঘন না করার আহ্বান জানিয়েছে। কিন্তু গাজার আবাসিক এলাকায় আগাম কোনও সতর্কবার্তা না দিয়েই ইসরায়েল নির্বিচারে হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

সংগঠনটি জানায়, গাজায় ইসরায়েলের এমন ৪টি প্রাণঘাতী হামলার ঘটনা তারা নথিভুক্ত করেছে। এ ঘটনা আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতকে তদন্ত করে দেখার আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি।