খুলনায় ১৩শ নিম্ন আয়ের মানুষ পেলেন খাদ্যসহায়তা

খুলনার খালিশপুর নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেড চত্ত্বরে আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে দুইশত জন করোনায় কর্মহীন নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী মানুষের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।
    নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেডের উদ্যোগে বিতরণ করা ত্রাণসমগ্রীর মধ্যে ছিলো ১০ কেজি চাল,  এক কেজি পোলার চাল, এক কেজি ডাল, এক লিটার সয়াবিন তেল, এক কেজি চিনি, সাবান দুইটি, সেমাই এক প্যাকেট, এক কেজি লবণ ও গুড়া দুধ ২৫০ গ্রাম।

    প্রধান অতিথি সিটি মেয়র বলেন, করোনার শুরু থেকেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অসহায় ক্ষতিগ্রস্তদের বিভিন্ন সাহায্য করছেন। করোনাভাইরাস সহনীয় পর্যায়ে না আসা পর্যন্ত ত্রাণসামগ্রী বিতরণ অব্যাহত থাকবে। করোনা পরিস্থিতি উত্তরণে সরকার সার্বক্ষণিক তৎপর রয়েছে। তিনি বলেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের করোনাপরিস্থিতি সহনীয় পর্যায়ে রয়েছে। করোনা মহামারীতে বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিৎ। করোনা প্রতিরোধে প্রয়োজন ছাড়া বাহিরে বের না হওয়ার জন্য সবাইকে আহবান জানান সিটি মেয়র।
    মেয়র, ৭, ৮, ১০, ১১, ১২ ও ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় এক হাজার একশত কর্মহীন নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী মানুষের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।
    এসময় কেসিসি’র প্যানেল মেয়র মোঃ আমিনুল ইসলাম মুন্না, নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোঃ আছাদ হালিম, নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ এজাজ মামুন, ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এসএম খুরশিদ আহমেদ, বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
    পরে সিটি মেয়র নগর ভবন চত্ত্বরে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবন মান উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ উপলক্ষ্যে ৯৩ জন শিশুর মাঝে শিশুখাদ্য বিতরণ করেন। শিশু খাদ্যের মধ্যে ছিলো মাথাপিছু ৩০টি ডিম, এক লিটার সয়াবিন তেল, চিনি ৫০০ গ্রাম ও সুজি ৫০০ গ্রাম।