দেশের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি বিবেচনায় কোভিড-১৯ আক্রান্তদের জন্য ৪০টি অক্সিজেন জেনারেটর সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে কেনার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বুধবার (১৯ মে) অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত অর্থনৈতিক বিষয়ক সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ সংক্রান্ত প্রস্তাবের নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

সভায় কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভাশেষে অনুমোদিত ক্রয় প্রস্তাবগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড.শাহিদা আক্তার।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আজকে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ১৫তম অনুষ্ঠিত হয়েছে। কমিটির অনুমোদনের জন্য ২টি এবং জরুরি প্রয়োজনে টেবিলে একটি প্রস্তাবসহ মোট তিনটি প্রস্তাব উত্থাপন করা হলে সবগুলোরই নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়।

করোনা রোগীদের জন্য অক্সিজেন জেনারেটর সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে ক্রয়ে দুর্নীতির প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়— এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্বাস্থ্যখাত অত্যন্ত জরুরি বিষয়, তাদের দায়িত্ব ছিল এসব চাহিদার বিষয়ে যথাযথ সময় ব্যবস্থা গ্রহণ করা। কিন্তু তখন সেটা করা হয়নি। করোনা পৃথিবীতে সবার জন্যই প্রথম, তাই সবাই সেসব কাজ সম্পর্কে অবগত থাকবে তাও না। যদি বার বার একই রকম মিসটেক (ভুল) হয় তাহলে এগুলো ইকোনমিক অ্যাফেয়ারস থেকে বাদ যাবে। তবে এখন যেগুলো আসছে সেগুলো নতুন। কোভিড সারাবিশ্বে তাণ্ডবলীলা চালাচ্ছে। এর মাঝে কাজের পরিধি বাড়ছে। আমাদের এখন এগুলো চিন্তা না করে মানুষের প্রাণ বাঁচাতে হবে। এই বিবেচনায় আমরা আজকে এটি অনুমোদন দিয়েছি। আমি একমত আরও আগে যথাযথভাবে যদি আমরা এগুলো করতে পারতাম তাহলে হয়তো সাশ্রয় হতো। তারপরও অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে সবাইকে বলেছি সাশ্রয়ী হতে হবে।’

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. শাহিদা আক্তার সাংবাদিকদের জানান, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের অধীন সিএমএসডি কর্তৃক কোভিড-১৯ সংক্রমিত রোগীর ব্যবহারের জন্য ৪০টি অক্সিজেন জেনারেটর সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে (ডিপিএম) ক্রয়ের নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহ অভিজ্ঞতায় অক্সিজেন সংকট এবং অক্সিজেনের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহের বিষয়টি প্রাধান্য পাচ্ছে। দেশটিতে শুধু অক্সিজেনের অভাবে প্রতিদিন মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। ভারত সরকারও অক্সিজেনের জোগান দিতে পারছে না। ভারতের এই পরিস্থিতিও বিবেচনায় রাখছে সরকার। এ জন্য দেশের করোনাভাইরাসের পরিস্থিতি বিবেচনায় ৪০টি অক্সিজেন জেনারেটর কিনছে সরকার। সময় স্বল্পতার কারণে জরুরি ভিত্তিতে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে এসব জেনারেটর কেনা হবে।

জানা গেছে, জরুরি পরিস্থিতিতে বড় আকারের ব্যয়বহুল অক্সিজেন প্লান্টের বিকল্প হিসেবে ৪০টি অক্সিজেন জেনারেটর কাস্টম শুল্কাদি, ভ্যাট, আয়কর, অভ্যন্তরীণ পরিবহন খরচ ইত্যাদিসহ বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রাক্কলিত এয়ারফ্রেইট চার্জসহ ৯২ কোটি ৬ লাখ ২৮ হাজার ৩৭০ টাকার প্রয়োজন হবে। অক্সিজেন জেনারেটর ক্রয়ের বাজেট বরাদ্ধের বিষয়ে অর্থবিভাগ থেকে আশ্বাস পাওয়া গেছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।