প্রতিনিয়ত বাড়ছে ডায়াবেটিস আক্রান্তের সংখ্যা। রোগটি সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকায় মানুষ এই রোগে বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন। আমাদের শরীর যখন পর্যাপ্ত ইনসুলিন তৈরি করে না বা এটি যখন কার্যকারিতা হারায় তখন একে ডায়াবেটিস বলে।

প্রায়ই বলতে শোনা যায়, মিষ্টি বেশি খেলেই নাকি ডায়াবেটিস হয়? এই ধারণা কি আদৌ সত্য? আসলে ডায়াবেটিস নিয়ে অনেক ভুল ধারণা প্রচলিত রয়েছে। এমন কিছু ধারণা সম্পর্কে চলুন জেনে নিই-

মিষ্টি খাবার বা চিনি খেলে ডায়াবেটিস হয়

এই ধারণাটি ঠিক নয়। কিছু ক্ষেত্রে ডায়াবেটিস জিনগত। এই রোগের পেছনে রয়েছে নিম্নমানের জীবনযাত্রাসহ একাধিক কারণ। তাই মিষ্টি খাবার খেলে ডায়াবেটিস হয় এমন ধারণা ঠিক নয়। তাই বলে যে একসঙ্গে অনেক মিষ্টি খাবেন তা কিন্তু নয়।

ডায়াবেটিস বয়স্কদের রোগ

এই ধারণাও ভুল। প্রকৃতপক্ষে টাইপ ১ ডায়াবেটিস বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই শিশুদের মধ্যেই দেখা যায়। আজকাল শিশু ও তরুণদের মধ্যে টাইপ ২ ডায়াবেটিসও উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে।

ওষুধের প্রয়োজন নেই, টোটকায় ডায়াবেটিস সারে

ডায়াবেটিস হলে নিয়মিত এবং দীর্ঘ চিকিৎসার প্রয়োজন হয়। অনেকেই ওষুধ খাওয়া বাদ দিয়ে বিকল্প চিকিৎসায় ঝোঁকেন। এতে হিতে বিপরীত হয়। রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে যায়। তাই ঘরোয়া টোটকায় ভরসা না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

ইনসুলিন নিচ্ছে মানেই সাংঘাতিক ডায়াবেটিস

এটি একটি ভুল ধারণা। উচ্চ HBA1C (৩ মাসের সুগারের গড়), প্রস্রাব বৃদ্ধি, ওজন কমানো ইত্যাদি কিছু নির্দিষ্ট কারণে ইনসুলিন গ্রহণের পরামর্শ দেওয়া হয়।

ওজন বেশি হওয়ার সঙ্গে ডায়াবেটিসের সম্পর্ক নেই

আসল সত্যটা হলো ডায়াবেটিস চিকিৎসার অন্যতম অংশ ওজন নিয়ন্ত্রণ করা। কিছু কিছু ওষুধে ওজন বেড়ে যায়। আবার কিছু ওষুধ স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন নিয়ন্ত্রণ করে। তাই ডায়াবেটিসের সঙ্গে ওজনের সম্পর্ক রয়েছে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

তিতা খাবার খেলে ডায়াবেটিস কমে

তিতা খাবার ডায়াবেটিস সাময়িকভাবে কমায়। কিন্তু দীর্ঘমেয়াদী ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব নয়। তাই, ডায়াবেটিস হলেই তেতো খাবার খাওয়া শুরু করবেন, ব্যাপারটি এমন নয়।