পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার নিজের রাজনৈতিক দল পিটিআইয়ের নেতাদের এবং তার সোশ্যাল মিডিয়া টিমকে সেনাবাহিনী ও নতুন সেনাপ্রধান (সিওএএস) জেনারেল অসিম মুনিরের সমালোচনা না করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) দলের সূত্রানুসারে, ‘দলের নেতা ও সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজারদের একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ইমরান বলেছেন যে দয়া করে এটা নিশ্চিত করুন যে নতুন পাকিস্তানি সেনাপ্রধান ও সেনা কর্মকর্তাদের কোনো সমালোচনা হবে না।’


পাকিস্তানের সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় এ বিষয়টা স্পষ্ট যে তার দল সামরিক সংস্থার সঙ্গে অস্থির সম্পর্ক পুনর্গঠন করতে চাচ্ছে।

পিটিআই সূত্র জানায়, জেনারেল মুনিরকে সেনাপ্রধান হিসেবে নিয়োগের পর ইমরান চান না যে তার প্রধানমন্ত্রীত্বের সময় তাদের দু’জনের মধ্যে যা হয়েছিল তার কোনো প্রতিফলন হোক।

পিটিআইয়ের শীর্ষ নেতা ফাওয়াদ চৌধুরী তার দলের নেতাদের এবং সোশ্যাল মিডিয়া টিমকে দেওয়া ইমারানের নির্দেশনার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি। তবে তিনি বলেন, পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর সঙ্গে দ্বন্দ্ব চায় না তার দল।

বুধবার ইমরান একটি টুইট বার্তায় নতুন সেনাপ্রধান জেনারেল মুনির ও সিজেসিএসসি জেনারেল সাহির শামশাদ মির্জাকে ভিনন্দন জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে তিনি বলেছেন, “নতুন সামরিক নেতৃত্ব বিরাজমান আস্থার ঘাটতি দূর করতে কাজ করবে যা গত আট মাসে পাকিস্তানি জাতি ও রাষ্ট্রের মধ্যে তৈরি হয়েছে। (কারণ) এ রাষ্ট্র তার সকল শক্তি জনগণের কাছ থেকেই পেয়েছে।

বিভিন্ন গণমাধ্যমের সূত্রানুসারে, ইমরান প্রথমে জেনারেল মুনিরকে সেনাপ্রধান হিসেবে নিয়োগের বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছিলেন, কিন্তু পরে তিনি তার নীতি পরিবর্তন করেন। ওই সময় তিনি বলেছেন, পাকিস্তানের সেনাপ্রধান যাকেই নিয়োগ করা হোক না কেন তার কোনো আপত্তি থাকবে না।

উল্লেখ্য, ইমরান তার প্রধানমন্ত্রীত্বের সময় জেনারেল মুনিরকে দেশটির গোয়েন্দা বিভাগ আইএসআই-এর প্রধানের পদ থেকে অকালে অপসারণ করেছিলেন।

সূত্র : দ্যা নিউজ ইন্টারন্যাশনাল