বিশ্বকাপে শুক্রবার সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে গ্রুপের শেষ ম্যাচে নামে সার্বিয়া। তার আগেই অভ্যন্তরীণ গন্ডগোলে বিদ্ধ তারা। দলের এক সতীর্থের স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগ উঠেছে এক ফুটবলারের বিরুদ্ধে। তবে সেই ফুটবলার সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। কিন্তু তাতেও কমছে না বিতর্ক।

বিতর্কের কেন্দ্রে রয়েছেন স্ট্রাইকার দুসান ভ্লাহোভিচ। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে দলের গোলকিপার প্রেদ্রাগ রাজকোভিচের স্ত্রী আনার সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের। সংবাদমাধ্যমের খবর, দু’জনে নিশিযাপনও করেছেন। সুইজারল্যান্ড ম্যাচের আগে সাংবাদিক বৈঠকে এসে আগেই এই প্রসঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। দুসান বলেছেন, “আমি দুঃখিত যে, এভাবে সংবাদ সম্মেলন শুরু করতে হচ্ছে। কিন্তু এ ব্যাপারে কথা বলতেই হবে। কারণ আমার নামে নোংরা কথা রটানো হচ্ছে।”

তিনি আরও বলেন, “সাধারণত এ ধরনের যা শুনি বা দেখি, তাতে খুব একটা পাত্তা দিই না। আসলে যারা এসব লেখে, তাদের কাছে আর কোনও কাজ নেই। ওরা হয় হতাশ, না হয় খুব রেগে গেছে। তবু দলের স্বার্থে আমাকে মুখ খুলতেই হচ্ছে। একটা কথাই বলতে পারি, অত্যন্ত জঘন্য কথা লেখা হচ্ছে। আমি এর থেকে নিজের নাম সরাতে চাই।”

সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে জিতলে বা ড্র করলে পরের পর্বে যাওয়ার সুযোগ ছিল সার্বিয়ার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। সুইসদের কাছে ২-৩ ব্যবধানে হেরে যায় সার্বিয়া। সূত্র: ডেইলি মেইল, স্পোর্টস ব্রিফমার্কাডেইলি স্টার ইউকেনিউ ইয়র্ক পোস্ট