ইউক্রেইনে রাশিয়ার সামরিক আগ্রাসন শুরু হওয়ার পর ধস নেমেছে ক্রিপ্টো মুদ্রা বাজারে। ২৪ ঘণ্টায় ক্রিপ্টো বাজারের সার্বিক মূল্য কমেছে ১৫ হাজার কোটি ডলার।

ক্রিপ্টো মুদ্রার বাজার বিশ্লেষক প্রতিষ্ঠান ‘কয়েনডেস্ক’-এর তথ্য বলছে, বৃহস্পতিবার কেবল বিটকয়েনের দাম পড়েছে ৮ শতাংশ; প্রতিটি বিটকয়েনের দাম নেমে এসেছে ৩৫ হাজার ডলারের নিচে। একই সময়ে ইথার মুদ্রার দাম ১২ শতাংশ কমে নেমে এসেছে দুই হাজার ৩২৫ ডলারের নিচে।

ইউক্রেইনে রাশিয়ার আগ্রাসন শুরু হওয়ার পর আন্তর্জাতিক পুঁজিবাজারে যে ধস নেমেছে, তার সঙ্গে যেন তাল মিলিয়ে ধস নেমেছে ক্রিপ্টো মুদ্রার বাজারে।

ক্রিপ্টো মুদ্রার বাজারদর বেশিরভাগক্ষেত্রেই মূল ধারার পুঁজিবাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ওঠানামা করে বলে মন্তব্য করেছে সংবাদ প্রকাশনায় মার্কিন প্রতিষ্ঠান সিএনবিসি।

এ প্রসঙ্গে আন্তর্জাতিক ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ ‘লুনো’র ভাইস প্রেসিডেন্ট ভিজায় আয়ার মন্তব্য করেছেন, “ঝুঁকিপূর্ণ সম্পদগুলোর উপর রাশিয়া-ইউক্রেইন বিরোধ ও অস্থিরতার চাপ পড়ছে। এর মধ্যে বিটকয়েন এবং অন্যান্য ক্রিপ্টো মুদ্রাও আছে যা এখনো উচ্চ ঝুঁকি সম্পন্ন সম্পদ হিসেবে দেখা হয়।”

ইতোমধ্যে রাশিয়ার বিভিন্ন ব্যাংক, ব্যক্তি এবং পুরো দেশের ঋণ ব্যবস্থার উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য। বৃহস্পতিবারেই এই বিষয়ে জরুরী বৈঠকে বসবে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন। রাশিয়ার উপর আরো নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে বলে শোনা যাচ্ছে বিভিন্ন সূত্র থেকে।

৬৯ হাজার ডলারের রেকর্ড বাজারমূল্য ছোঁয়ার পর থেকেই চাপে আছে বিটকয়েন। গেল বছরের নভম্বের মাসে সে মাইলফলক ছোঁয়ার পর থেকে ক্রিপ্টো মুদ্রাটির দাম পড়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ।

বিটকয়েনের দাম ৩০ হাজার ডলারে নেমে আসতে পারে বলে আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন আয়ার। গেল বছরের জুলাই মাসে বিটকয়েনের সর্বনিম্ন দাম ছিল ২৮ থেকে ২৯ হাজার ডলারের মধ্যে।

কিন্তু সর্বনিম্ন দামে না নামলে চলতি বছরেই ক্রিপ্টো মুদ্রাটি আবার সর্বোচ্চ দামের নতুন রেকর্ড গড়তে পারে– এমন আশার কথাও বলেছেন আয়ার।