ফেব্রুয়ারিতে খবর পাওয়া যায় সংগীতশিল্পী বেজ বাবা সুমনের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। গত বছর এই গায়কের চিকিৎসার জন্য জার্মানি যাওয়ার কথা ছিল। করোনায় আটকে যায় যাত্রা। মিলছে না ভিসা। ভিসা জটিলতার কারণে আটকে আছে উন্নত চিকিৎসা।

পরে জানা যায় এ শিল্পীকে ভারতে নেয়া হয়েছে৷ সেখানে একটি হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে তার।

কেমন হচ্ছে চিকিৎসা? কেমনই বা আছেন সুমম, তা জানালেন তিনি নিজেই৷ ১৬ এপ্রিল রাতে এক স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, ‘আমার অবস্থা চলছে কোনরকম।’

বেজ বাবা সুমন আরও লিখেছেন, ‘সারাদিন হোটেলে বসে সাইবারপাঙ্ক খেলি আর তিন দিন পর পর হসপিটাল যাই থেরাপি করতে। নেক্সট মাসে ঢাকা চলে আসবো ইনশাআল্লাহ। কয়েকটা সার্জারি করাতে হবে। স্পাইনের অবস্থা খুব একটা ভালো না। সম্ভবত ঈদের পর জার্মানিতে গিয়ে করাবো।

যারা বলে বেড়াচ্ছে আমি ‘মৃত্যুর দিন গুনছি’ তাদের কথা সিরিয়াসলি নিবেন না। একটু আগেও চেক করলাম, আমি যথেষ্ট পরিমানে ‘জীবিত’ আছি। যাই হোক, সবাই সাবধানে থাকবেন, সুস্থ থাকবেন।’

এ স্ট্যাটাসের নিচে প্রিয় শিল্পীর জন্য প্রার্থনা জানাচ্ছেন সবাই৷

প্রসঙ্গত, বেশ কয়েক বছর আগে চিকিৎসকেরা সুমনের শরীরে দুটি টিউমারের অস্তিত্ব পান। একসময় জানা যায়, তিনি ক্যানসারে আক্রান্ত। তখন ক্যানসারটি প্রথম ধাপে ছিল। এই গায়কের শরীরে অস্ত্রোপচার করা হয়। পরে তিনি একটু একটু করে ভালো হয়ে ওঠেন। গানে নিয়মিত হবেন, এমন সময় আবার দুঃসংবাদ শোনেন।

চিকিৎসকেরা জানান, তার আবার ক্যানসার ধরা পড়েছে। এত কিছুর পরও তিনি মনোবল হারাননি। আবারও তার শরীরে সার্জারি করা হয়। ২০১৭ সালে সার্জারি করার পর ব্যাংককের একটি হাসপাতাল থেকে ফিরছিলেন এই গায়ক। এমন সময় হঠাৎ তাঁকে একটি গাড়ি ধাক্কা দেয়। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে যেতে হয় হাসপাতালে। প্রায় ১১ ঘণ্টা ধরে ৯টি সার্জারি করা হয়। ব্যাংককের ওই দুর্ঘটনায় সুমনের স্পাইনাল কর্ডের ক্ষতি হয়। সেই থেকেই কিছুদিন পরপর স্পাইনাল কর্ডের ব্যথাটা বাড়ত। এখন ব্যথাটা নিয়মিত হচ্ছে। বেজ বাবা সুমনের আগের কিছু সমস্যা থাকলেও সেগুলো গুরুতর নয়। সেগুলোর জন্যও তিনি নিয়মিত চিকিৎসা নিচ্ছেন।