সাবিনা-কৃষ্ণাদের জন্য সুখবর! সবকিছু ঠিক থাকলে দীর্ঘ আড়াই বছরের বেশি সময় পর আবার তারা খেলতে নামবে আন্তর্জাতিক ম্যাচ। ২০১৯ সালের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের পর জাতীয় দলের মেয়েদের আর মাঠেই নামা হয়নি।

মার্চের শেষ সপ্তাহে অল নেপাল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (আনফা) আয়োজন করেছিল ত্রিদেশীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট। বাংলাদেশ, কিরগিজস্তান অলিম্পিক দল ও নেপালকে নিয়ে আয়োজিত এই টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল স্বাগতিকরা।

ওই টুর্নামেন্টে খেলা দেখতে নেপাল গিয়েছিলেন বাফুফে সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিনসহ আরও কয়েকজন কর্মকর্তা। ছিলেন বাফুফের নির্বাহী কমিটির সদস্যা, মহিলা উইংয়ের চেয়ারপার্সন, ফিফার কাউন্সিল মেম্বার ও এএফসির নির্বাহী কমিটির সদস্য মাহফুজা আক্তার কিরণ।

তখনই অল নেপাল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতির সঙ্গে বাফুফে কর্মকর্তাদের আলোচনা হয়েছিল মেয়েদের এমন একটি টুর্নামেন্ট আয়োজন নিয়ে। মাহফুজা আক্তার কিরণ জানান, ‘ছেলেদের টুর্নামেন্ট চলাকালীন আনফার সভাপতির সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। আনফা সভাপতি আমাকে বলেছিলেন-বাংলাদেশে তো মেয়েদের লিগ হয়, আপনি অনেক এগিয়ে আছেন। তখন তিনি প্রস্তাব করেছিলেন ছেলেদের মতো মেয়েদের একটা তিনজাতি টুর্নামেন্ট করার। আমি জিজ্ঞাস করেছিলাম- কাদের নিয়ে করবেন? আনফা প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন-এই তিন দেশ নিয়েই। আমরা সম্মতি দিয়েছি।’

তবে বাংলাদেশ একটা শর্ত দিয়েছিল বলে জানিয়েছেন মাহফুজা আক্তার কিরণ। তিনি বলেন, ‘আমরা আনফাকে বলেছি, টুর্নামেন্টে হতে হবে সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বরে যে ফিফা উইন্ডো আছে, তার মধ্যে। ঢাকায় ফিরে আমি অফিসকেও বলেছি নেপালকে একটি সম্মতিপত্র দিতে যে, আমরা ওই টুর্নামেন্ট খেলব। আমরা আবার ফিফা র্যাংকিংয়ে ঢুকেছি। ওই টুর্নামেন্ট খেললে র্যাংকিং আরও বাড়িয়ে নেয়া যাবে।’