একে তো করোনাকাল তার উপরে প্রচণ্ড গরম আবহাওয়া। এমন সময়ই রমজান মাস শুরু হতে যাচ্ছে। করোনাকালে শরীর সুস্থ রাখতে পছন্দের খাবার খেয়ে সাহরিতে পেট ভরালেই হবে না। সুস্থতার বিষয়ও মাথায় রাখতে হবে।

সারদিন সুস্থ থাকতে এবং ক্লান্তিবোধ এড়াতে সাহরির খাবারে বিশেষ নজর রাখা জরুরি। সাহরিতে আপনি কোন খাবারগুলো খাবেন, তার উপরই নির্ভর করবে আপনার সারাদিন কেমন যাবে।

আর এ করোনাকালে সুস্থ থাকতে মুখের স্বাদের চেয়ে পুষ্টিকর খাবারগুলো বেছে নেওয়া জেনে নিন করোনাকালে সাহরিতে যা খাবেন-

>> দীর্ঘক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে ফাইবার বা আঁশসমৃদ্ধ খাবার। এতে রোজা রাখা সহজ হয়। কারণ সহজে ক্ষুধা লাগবে না ফাইবারজাতীয় খাবার খেলে। এজন্য সাহরিতে কলা, আম, গাজর, আপেল, বাদাম, ডাল রাখতে পারেন।

>> সাহরিতে অবশ্যই কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে। ব্রাউন রাইসের ভাত খেলে সবচেয়ে বেশি পুষ্টি মিলবে। পরিমিত পরিমাণ ভাত, আলু, কর্ণ স্যুপ কিংবা দুধজাতীয় খাবার রাখুন।

>> যেহেতু সারাদিন পানি পান করা হবে না, তাই সাহরির সময় বেশি করে পানি পান করুন। রোজা রেখে প্রতিদিন কমপক্ষে ৭-৮ গ্লাস পানি পান করা উচিত। এতে আপনার হজম ক্ষমতা বাড়বে।

>> ডিমে আছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন। সাহরিতে প্রোটিনজাতীয় খাবার অবশ্যই রাখতে হবে। এতে মাংসপেশি থাকবে শক্তিশালী এবং আপনি পাবেন সারাদিন রোজা রাখার মত প্রয়োজনীয় শক্তি।

>> তরমুজের মতো প্রচুর পরিমাণ পানি আছে এমন ফল খেলে পানি তৃষ্ণা কমে যাবে। এজন্য সাহরিতে খেতে পারেন আপেল, কমলা বা মালটা।

>> ফ্যাটজাতীয় খাবার খুবই কম পরিমাণে খেতে হবে। তবে ফ্যাট সমৃদ্ধ দুধ শরীরের জন্য উপকারি। সাহরিতে এক গ্লাস দুধ হতে পারে আপনার সারাদিনের চালিকা শক্তি।

সাহরিতে যেসব খাবার খাবেন না

>> কখনোই সাহরিতে চা, কফি খাবেন না। ক্যাফেইন সমৃদ্ধ পানীয় আপনার তৃষ্ণা এবং শরীরের তাপমাত্রা আরো বাড়িয়ে দেবে।

>> পেট ভরাতে অনেকেই সাহরিতে অস্বাস্থ্যকর খাবার খেয়ে থাকেন। যা কখনোই করা উচিত নয়। এতে পাকস্থলীর উপর চাপ পড়ে হতে পারে হজমজনিত সমস্যা।

>> সাহরিতে কখনোই অতিরিক্ত পানি পান করবেন না। অনেক বেশি পানি পান ডেকে আনতে পারে হজমজনিত সমস্যা।

>> ভাজা-পোড়া খাবার বা অনেক তৈলাক্ত খাবার পরিহার করুন সাহরিতে। অতিরিক্ত লবণ যুক্ত খাবার খাবেন না। এতে দেহে পানিশূন্যতা তৈরি হয়।