নিসচার উদ্যোগে বিশ্ব সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহ পালিত

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) খুলনা মহানগর শাখার উদ্যোগে ৬ষ্ঠ ইউএন গ্লোবাল রোড সেফটি উইক (১৭-২৩) উদযাপন উপলক্ষে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

সোমবার (১৭ মে) বিকেল সাড়ে ৫টায় মহানগরীর রয়্যাল চত্ত্বরে এ অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়। জাতিসংঘ এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কর্তৃক ঘোষিত বিশ্ব সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহের এবারের মূল বক্তব্য ছিল জীবনের জন্য সড়ক- ভালবাসী ৩০ কি.মি.।

নিসচার খুলনা মহানগর শাখার আহবায়ক এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লবের সভাপতিত্বে এতে সঞ্চলনা করেন সাংবাদিক মাহবুবুর রহমান মুন্না।

কমৃসূচিতে বক্তব্য রাখেন ওয়ার্কার্স পার্টির মহানগর সভাপতি শেখ মফিদুল ইসলাম, নাগরিক নেতা মিজানুর রহমান বাবু, নিসচা মহানগর যুগ্ম আহবায়ক শেখ মো: নাসির উদ্দিন, মো: সাইফুল ইসলাম, মো. আব্দুস সালাম শিমুল, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি যুগ্ম সহাসচিব অ্যাডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমান, আগুয়ান ৭১ সভাপতি মো. আব্দুল্লাহ চৌধুরী, নিসচার নেতা  মো: নাজমুল হোসেন, মো: সোলায়মান হোসেন, এস এম এ রহিম, এম মোস্তফা কামাল, মাসুদ রানা, আফজাল দেওয়ান, মেরাজ হোসেন,  নূর আলম খন্দকার, ফিরোজ আহমেদ, জাহিদ, হেলাল প্রমুখ। 

সংহতি প্রকাশ করে আরো অংশ গ্রহন করে গ্রাস রুটস্ অর্গানাইজেশন ফর টেনোলজিক্যাল ইনিশিয়েটিভ।

অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, খুলনা মহানগরীতে চলাচলকারী সকল প্রকার যানবাহনের সর্ব্বোচ্চ গতিসীমা ৩০ কি.মি করা হোক প্রতি ঘন্টায়। সেই সাথে মহানগরীতে পথযাত্রীদের চলাচলনের জন্য ফুটপাত নিশ্চিত করা হোক। দখল মুক্ত করা হোক সকল সড়ক ও ফুটপাত।  

তারা আরও বলেন, বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানো ছাড়াও বিপজ্জনক ওভারটেকিং (পাল্লাপাল্লি), সড়ক-মহাসড়কের নির্মাণ ত্রুটি, ফিটনেসবিহীন যানবাহন, অদক্ষ ও লাইসেন্সবিহীন চালক, বিরামহীনভাবে গাড়ি চালানো এবং আইনের যথাযথ প্রয়োগের অভাবে বাড়ছে দুর্ঘটনা। এছাড়াও রয়েছে যাত্রী ও পথচারীদের অসতর্কতা, চলন্ত অবস্থায় মুঠোফোন ব্যবহার, রাস্তায় ফুটপাত না থাকা বা ফুটপাত বেদখলে থাকা এবং সড়কে ছোটো যানবাহনের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় প্রতিদিন ঘটছে দূর্ঘটনা। ময়লাপোতা থেকে জিরো পয়েন্ট পযর্ন্ত সড়কে বাইসাইকেল ব্যবহারের জন্য আলাদা লেন করতে হবে। সময় হয়েছে বিশ্বমানের আধুনিক শহর গড়ার। একটি আধুনিক পরিবেশ বান্ধব শহরের প্রধান আর্কষন পরিকল্পিত নিরাপদ সড়ক ও পরিবহন ব্যবস্থা। যা এখনও আমরা সৃষ্টি করতে পারেনি। বেপরোয়া গতির জন্য প্রতি বছর শত শত প্রাণ হারাচ্ছে। খুলনা মহানগরীর কয়েকটি গুরুত্ত্বপূর্ণ সড়ক কেডিএ-এর ব্যর্থতার কারনে সরকার থেকে একাধিকবার অর্থ বরাদ্দ করা হলেও বিগত ৭/৮ বছরেও সংস্কার করতে পারেনি। সড়কের সকল প্রকার দুর্নীতি – অনিয়ম বন্ধ করতে হবে। মানুষকে দূর্ঘটনা মুক্ত নিরাপদে পথ চলার ব্যবস্থা করতে হবে।