খুলনা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বটিয়াঘাটা উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দ থেকে দুইশত প্রান্তিক, অসহায় ও দুস্থ পরিবারের শিশুদের মাঝে পুষ্টিকর খাদ্য বিতরণ করা হয়। খাদ্যসহায়তা হিসেবে প্রতিটি শিশুর অভিভাবকের হাতে দুধ, চিনি, সুজি, বিস্কুট, সাবান, সেমাই, নুডুলস তুলে দেওয়া হয়। খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন শিশুর অভিভাবকদের মাঝে এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন। খুলনা জেলায় বরাদ্দকৃত নয় লাখ টাকা নয়টি উপজেলার প্রান্তিক শিশুদের খাদ্যসাহয়তা হিসেবে সমানভাবে বন্টন করা হয়।

    কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসন করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া চারটি উপকারভোগী পরিবারের মাঝে চার হাজার টাকার খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে।

    মেহেরপুর জেলায় এ পর্যন্ত ১৩ হাজার দুইশত ৫০ উপকারভোগী পরিবারের মাঝে ৫৯ লাখ ৬২ হাজার পাঁচশত টাকার খাদ্যসামগ্রী এবং ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় ১৫ হাজার দুইশত ৫০ উপকারভোগী পরিবারের মাঝে ৬৮ লাখ ৬২ হাজার পাঁচশত টাকার আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া ৩৩৩ কল এর মাধ্যমে ১৫টি পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। 

    বাগেরহাট জেলায় এ পর্যন্ত ৪০ হাজার পাঁচশত উপকারভোগী পরিবারের মাঝে দুই কোটি দুই লাখ ৫০ হাজার টাকার খাদ্যসামগ্রী এবং ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় এক কোটি ৭২ লাখ আটশত ৯৯ উপকারভোগী পরিবারের মাঝে সাত কোটি ৭৮ লাখ চার হাজার পাঁচশত ৫০ টাকার আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া ৩৩৩ কল এর মাধ্যমে দুইশত ৩৯টি পরিবারকে খাদ্যসহায়তা প্রদান করা হয়।