খুলনায় জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবস উপলক্ষে আজ (বুধবার) সকালে অনলাইন জুম প্রযুক্তিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় কার্যালয় অয়োজিত এ আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। দিবসটি পালনে এবারের প্রতিপাদ্য ছিলো ‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, নিরাপদ কর্মপরিবেশ হোক সবার’।
    সভাপতির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক বলেন, শিল্পক্ষেত্রে শ্রমিকের নিরাপত্তা সবচেয়ে গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করতে হবে। নিজে নিরাপদ থাকলে একজন শ্রমিক সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন। এ বিষয়ে মালিক-শ্রমিক সবাইকে আরও সচেতন হওয়া দরকার। সঠিক পদক্ষেপ নিয়ে কর্মক্ষেত্রে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এখন সময়ের দাবি।
    অনুষ্ঠানের মুক্ত আলোচনায় বিভিন্ন শিল্প ক্ষেত্রে প্রতিনিধিরা যুক্ত হয়ে কর্মক্ষেত্রে শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে তাঁদের গৃহীত পদক্ষেপ বিষয়ে সকলকে অবহিত করেন। এ সময় করোনাকালে শিল্প-কারখানায় প্রবেশের ক্ষেত্রে প্রত্যেকের শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপ, হাত স্যানিটাইজ করা, মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করা ও শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করতে চলমান কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা করা হয়। অনুষ্ঠানে আরও জানানো হয়, করোনাকালে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় কার্যালয় খুলনা বিভাগের দুইশত শিল্পকারখানাকে বিশেষ গাইডলাইন প্রদান করেছে এবং সচেতনতা বৃদ্ধিতে পাঁচ হাজার লিফলেট ও পোস্টার বিতরণ করেছে।
    কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় উপমহাপরিদর্শক (চলতি দায়িত্ব) মোঃ আরিফুল ইসলামের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিভাগীয় শ্রম দপ্তরের পরিচালক মোঃ মিজানুর রহমান, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ আবুল আলমসহ সরকারি কর্মকর্তা, ফ্রজেন ফুড অ্যসোসিয়েশন, জুট মিল, সিমেন্ট ফ্যক্টরির প্রতিনিধিসহ শিল্পখাত ও এনজিও প্রতিনিধিরা  অনলাইনে যুক্ত হয়ে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন।