ইয়াবা ট্যাবলেট নয়, বস্তার ভেতরে করে মিয়ানমার থেকে স্বর্ণ পাচারের সময় এবার কোস্টগার্ডের হাতে ধরা পড়ল ২ হাজার ১৫৯ দশমিক ৪৩ গ্রাম ওজনের ১৩টি স্বর্ণের বার। যার আনুমানিক মূল্য ১ কোটি ৫২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের বরইতলী এলাকা থেকে স্বর্ণের বারগুলো উদ্ধার করা হয়েছে বলে কোস্টগার্ডের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

বাংলাদেশ কোস্টগার্ড গোয়েন্দা পরিদফতর শাখার মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কমান্ডার খন্দকার মুনিফ জানান, শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত দুইটার দিকে মিয়ানমার থেকে বাণিজ্যিক পণ্য নিয়ে আসে একটি ট্রলার। সেই ট্রলার কক্সবাজারের টেকনাফ স্থলবন্দরে নোঙর করে। এরপর সেখান থেকে নেমে হলুদ রঙের একটি বস্তাসহ প্যারাবন দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন এক ব্যক্তি। ওই ব্যক্তিকে কোস্টগার্ড সদস্যরা থামার জন্য সংকেত দিলে তিনি বস্তাটি ফেলে পাহাড়ের দিকে পালিয়ে যান। পরে ওই বস্তার ভেতর থেকে ২০ কেজি গুড় ও ২ হাজার ১৫৯ দশমিক ৪৩ গ্রাম ওজনের ১৩টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ১ কোটি ৫২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

খন্দকার মুনিফ আরও বলেন, এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

তবে টেকনাফ স্থলবন্দরের পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড ল্যান্ডপোর্ট লিমিটেড টেকনাফের মহাব্যবস্থাপক (হিসাব) জসিম উদ্দিন চৌধুরী বন্দরের ভেতর থেকে স্বর্ণের বার উদ্ধারের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

পিএসএন/এমঅ‌াই