ভারতের রাজধানী দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল করোনাভাইরাস সংক্রান্ত বিধিনিষেধ শিথিলের ঘোষণা দিয়েছেন। দুই মাসের মাসের মধ্যে সংক্রমণ সবচেয়ে কম হওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। সোমবার থেকে বিধিনিষেধ শিথিলের নতুন নির্দেশ কার্যকর হবে। খবর এনডিটিভির।

এ প্রসঙ্গে কেজরিওয়াল বলেন, ‘বর্তমান সময়ের মত যদি সংক্রমণ কমতে থাকে, তাহলে আমাদের জীবন ধীরে ধীরে আবার স্বাভাবিক হয়ে উঠবে। এটি একটি বিশাল ট্র্যাজেডি এবং সবাই মিলে এটি মোকাবিলা করতে হবে।’

নতুন ঘোষণায় দিল্লিতে যা যা খোলা ও বন্ধ থাকবে তা হলো- স্কুল, কলেজ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগের মতোই বন্ধ থাকবে। রাজনৈতিক/সাংস্কৃতিক সমাবেশ বন্ধ থাকবে। সুইমিং পুল, জিম, স্পা, পাবলিক পার্ক ও গার্ডেনগুলো বন্ধ থাকবে।

জনপরিসরে বিয়ের আয়োজন করা যাবে না। বিয়েতে সর্বোচ্চ ২০ জন পর্যন্ত উপস্থিত থাকতে পারবেন। দিল্লি মেট্রোসহ গণপরিবহন ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে পারবে। অটোরিকশা ও ট্যাক্সিতে সর্বোচ্চ দুইজন যাত্রী বসতে পারবেন।

সকল মার্কেট সকাল ১০টা থেকে ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। রেস্টুরেন্টগুলো ৫০ শতাংশ পর্যন্ত গ্রাহক নিয়ে পরিচালনা করতে পারবে। দিল্লির সেলুন এবং সাপ্তাহিক বাজারগুলো আগামীকাল থেকে কার্যক্রম চালাতে পারবে। প্রতিটি জোনে কেবল একটি করে বাজার খোলা রাখা যাবে।

শহরের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো আবার খুলে দেয়া হবে তবে কোনো দর্শনার্থী প্রবেশ করতে পারবেন না।

কেজরিওয়াল বলেন, দিল্লির করোনা পরিস্থিতির উল্লেখযোগ্য উন্নতি হয়েছে এবং আক্রান্তের সংখ্যাও বেশ কমেছে। তবে তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, যদি সংক্রমণ আবার বেড়ে যায় তাহলে বিধিনিষেধ আবারও কঠোর করা হবে।