একদিনের ব্যবধানে দৈনিক সংক্রমণ কিছুটা কমেছে ভারতে। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ৯৭ হাজার মানুষ। একদিন আগেই আক্রান্তের সংখ্যা ছিল এক লাখের বেশি।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার সকালে জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৬ হাজার ৯৮২। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা

ওয়ার্ল্ডোমিটারের পরিসংখ্যান বলছে, ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ২৬ লাখ ৮৬ হাজার ৪৯। এর মধ্যে মারা গেছে ১ লাখ ৬৫ হাজার ৫৭৭ জন। ইতোমধ্যেই দেশটিতে সুস্থ হয়ে উঠেছে ১ কোটি ১৭ লাখ ৩২ হাজার ২৭৯ জন।

ভারতে বর্তমানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৭ লাখ ৮৮ হাজার ১৯৩। এছাড়া আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে ৮ হাজার ৯৪৪ জন।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ৪৪৬ জন।

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুতে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এই তালিকায় দ্বিতীয় ব্রাজিল এবং ভারতের অবস্থান তৃতীয়।

ভারতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্য হচ্ছে মহারাষ্ট্র। সেখানে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪৭ হাজার ২৮৮। করোনা পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকায় ওই রাজ্যে আংশিক লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ জারি না হওয়া পর্যন্ত প্রতি সপ্তাহের শেষে, অর্থাৎ শুক্রবার সন্ধ্যা ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৭টা পর্যন্ত লকডাউন কার্যকর থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

এদিকে, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরে সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অনুরোধ করেছেন যেন তার রাজ্যে ২৫ বছরের বেশি বয়সীদের ভ্যাকসিন নেয়ার অনুমতি দেয়া হয়।

অপরদিকে সোমবার রাজধানী দিল্লিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে আরও ৩ হাজার ৩৪৮ জন। করোনা পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকায় সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে মঙ্গলবার বৈঠকে বসতে চলেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাজ্যগুলো কিভাবে কাজ করছে, টিকাকরণ কেমন চলছে, এসব বিষয় নিয়ে রাজ্যের প্রধানদের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি।