সম্ভবত আমাদের খেলা সেরা টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। আগে এমন কোনো রান তাড়ার ঘটনা দেখিনি। পোলার্ডের অন্যতম সেরা ইনিংস। বাইরে বসে দেখা অসাধারণ অনুভূতি ছিল’- ম্যাচ শেষে এভাবেই নিজের অনুভূতি প্রকাশ করেছেন মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের অধিনায়ক রোহিত শর্মা।

ম্যাচ পরবর্তী পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আসার আগে অবিশ্বাস্য কীর্তিই দেখেছেন রোহিত। কাইরন পোলার্ডের সাইক্লোন ইনিংসে অবিস্মরণীয় এক জয় পেয়েছে মুম্বাই। চেন্নাই সুপার কিংসের করা ২১৮ রানের জবাবে ৪ উইকেটে জিতেছে মুম্বাই। যেখানে পোলার্ড খেলেছেন ৩৪ বলে ৮৭ রানের ইনিংস।

তার এই সাইক্লোন ইনিংসে ওলটপালট হয়েছে রেকর্ডের খাতা। সেসব রেকর্ড নিয়েই সাজানো এই প্রতিবেদন:

চেন্নাইয়ের করা ২১৮ রান তাড়া করতে নেমে শেষ দশ ওভারে ১৩৮ রান তুলেছে মুম্বাই। আইপিএলে সফল তাড়ার ম্যাচে শেষ দশ ওভারে এটিই সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। তারা ভেঙেছে নিজেদের রেকর্ড। ২০১৯ সালের আসলে কিংস এলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে শেষ দশ ওভারে ১৩৩ রান করেছিল মুম্বাই।

এছাড়া সবমিলিয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সফল তাড়ার ম্যাচে তৃতীয় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এটি। ২০১৮ সালের সিপিএলে শেষ ১০ ওভারে ১৪৪ রান করেছিল ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। একই আসরে শেষ দশ ওভারে ১৩৯ রান করে ম্যাচ জিতেছিল জ্যামাইকা তালাওয়াস।

আইপিএল ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ড গড়েছে মুম্বাই। গত আসরে কিংস এলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে ২২৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জিতেছিল রাজস্থান রয়্যালস। এর পরেই জায়গা পেল মুম্বাইয়ের ২১৯ তাড়া করে জেতার ম্যাচটি।

সাইক্লোন ইনিংসে ৩৪ বলে ৮৭ রান করার পথে মাত্র ১৭ বলে ফিফটি করেছেন পোলার্ড। মুম্বাইয়ের পক্ষে এর চেয়ে দ্রুততম ফিফটি নেই আর কারও। সমান ১৭ বলে আরেকটি ফিফটি রয়েছে পোলার্ডের। এছাড়া ইশান কিশান ও হার্দিক পান্ডিয়াও ১৭ বলে ফিফটি করেছেন।

ম্যাচে নিজেদের ইনিংসে ১৬টি ছক্কা হাঁকিয়েছে চেন্নাই। আইপিএলের ইতিহাসে মুম্বাইয়ের বিপক্ষে এক ম্যাচে এত বেশি ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড আর কোনো দলের। ২০১৯ সালের আসরে কলকাতা হাঁকিয়েছিল ১৫টি ছক্কা। চেন্নাইয়ের ১৬ ছক্কার জবাবে মুম্বাইয়ের ইনিংসে ছিল ১৪ ছক্কার মার। যা কি না চেন্নাইয়ের বিপক্ষে এক ম্যাচে সর্বোচ্চ ছয়ের রেকর্ড।

চেন্নাইয়ের ইনিংসে দেখা মিলেছে দুইটি শতরানের জুটির। আইপিএল ইতিহাসে এক ইনিংসে দুইটি শতরানের জুটি এবারই প্রথম। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ১০৮ রান যোগ করেন ফাফ ডু প্লেসিস ও মঈন আলি। পরে পঞ্চম উইকেটে ১০২ রানের জুটি গড়েন আম্বাতি রাইডু ও রবীন্দ্র জাদেজা।