তীব্র সমালোচনার পরে সিদ্ধান্ত বদল করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ভারতে টিকা তৈরির কাঁচামাল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। এমন সিদ্ধান্ত নেয়ার পর প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জানিয়েছেন, বিপদের সময় ভারত তাদের পাশে দাঁড়িয়েছিল। তাই ভারতের এই দুঃসময়ে যুক্তরাষ্ট্রও পাশে দাঁড়াবে।

টুইট বার্তায় বাইডেন বলেন, ‘প্রথমদিকে মহামারির প্রভাবে আমাদের হাসপাতালগুলো যখন সমস্যায় পড়েছিল, তখন যেভাবে ভারত সাহায্য করেছিল ঠিক সেভাবেই তাদের প্রয়োজনের সময় আমরা সাহায্য করতে বদ্ধপরিকর।

এর আগে রোববার (২৬ এপ্রিল) ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল এবং যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভানের মধ্যে ফোনে কথোপকথন হয়। জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র এমিলি হর্ন বলেন, ‘ভারতের করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের রক্ষা করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেবে। পিপিই কিট, র্যাপিড টেস্ট কিট, ওষুধের সরঞ্জাম, ভেন্টিলেটর পাঠানো হবে খুব তাড়াতাড়ি।’

তিনি আরও জানান, যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার (সিডিসি) জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের একটি দলকেও দিল্লি পাঠানো হবে। তারা আমেরিকার দূতাবাস ও ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে হাত মিলিয়ে মহামারি মোকাবিলায় কাজ করবেন।

করোনার প্রথম ঢেউয়ের সময় যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ভারতের কাছে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন পাঠানোর আবেদন করেন। তখন অত্যন্ত দ্রুত ওষুধ দিয়ে সাহায্য করেন নরেন্দ্র মোদিও। টুইট করে সেই সাহায্যের কথা তুলে ধরে এবার তাদের পদক্ষেপের কথা জানালেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

এদিকে, করোনায় বিধ্বস্ত ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৩ লাখ ৫২ হাজার ৯৯১ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। এসময় মারা গেছেন অন্তত ২ হাজার ৮১২ জন।