করোনার সবচেয়ে ভয়ানক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট প্রথম শনাক্ত হয়েছে ভারতে। ভারতে প্রথম শনাক্ত হওয়ার অনেকে এটিকে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট বলেন। তারপর এটি ছড়াতে শুরু করে বিশ্বের অন্যান্য দেশে। এখন পর্যন্ত পৃথিবীর ৭৪টি দেশে শনাক্ত হয়েছে এ ভ্যারিয়েন্ট।

ডেল্ট ভ্যারিয়েন্টে ভারতের পর সবচেয়ে নাজুক পরিস্থিতিতে পড়েছে যুক্তরাজ্য। দেশটিতে নতুন শনাক্ত হওয়াদের মধ্যে ৯০ শতাংশের শরীরে মিলছে এ ভ্যারিয়েন্ট।

এদিকে করোনার এ ভয়াল থাবা মোকাবিলায় চলমান লকডাউনের সময় বাড়িয়েছে ইংল্যান্ড। সেখানে আগামী ২১ জুন শেষ হওয়ার কথা ছিল লকডাউন। কিন্ত এখন তা ২১ জুনের পর বাড়ানো হয়েছে আরও চার সপ্তাহ।

যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে যারা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন তাদের প্রায় ১০ শতাংশের শরীরে পাওয়া যাচ্ছে ভয়ংকর ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। যুক্তরাষ্ট্রের ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনস্বাস্থ্য বিভাগের ডিন আশীশ ঝা বলেন, অন্য যেকোনো ভ্যারিয়েন্টের থেকে বেশি প্রাণঘাতি ডেল্টা।

এছাড়া করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্তের দেশ চীনেও পৌঁছে গেছে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। দেশটির গুয়াংজুতে ৭৫ বছর বয়সী এক নারীর শরীরে এ ধরনটি পাওয়া গেছে।

ইন্দোনেশিয়ায় চলছে করোনার নতুন ঢেউ। দেশটির সংক্রমণের হার এখন সর্বোচ্চ। ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় নতুন করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ৭৫ শতাংশের শরীরে মিলেছে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট।

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট রোধে বাড়তি সতর্ক অবস্থানে রয়েছে আফ্রিকার দেশ জিম্বাবুয়ে। আলাদাভাবে লকডাউন দেয়া হয়েছে বেশ কয়েকটি জেলায়। রাষ্ট্রীয় হিসাবে গত তিন দিনে দেশটিতে ৪০ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।

ডেল্টা ছাড়াও করোনাভাইরাসের আরও কিছু ভ্যারিয়েন্ট রয়েছে। গ্রিক নিয়ম অনুযায়ী যুক্তরাজ্য ধরনের নাম আলফা, দক্ষিণ আফ্রিকান ধরনের নাম বেটা আর ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের নাম ডেল্টা। ভ্যারিয়েন্টগুলো নিয়ে সহজে আলোচনা করার জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সম্প্রতি এ নামকরণ করে।

এদিকে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সারা বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ৯ হাজার ৯০ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ২৫ হাজার ৯৫৮ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লাখ ৫৩৬ জন। সোমবার (১৪ জুন) আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন মোট ১৭ কোটি ৬৭ লাখ ১৩ হাজার ৪৭০ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৩৮ লাখ ১৯ হাজার ৩০০ জন। আর এখন পর্যন্ত করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৬ কোটি সাত লাখ ৪৮ হাজার ৬৯ জন।

বিশ্বে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় সবার ওপরে এখনও রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন তিন কোটি ৪৩ লাখ ২১ হাজার ১৫৮ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ছয় লাখ ১৫ হাজার ৫৩ জন। আর সুস্থ হয়েছেন দুই কোটি ৮৪ লাখ ১৩২ জন।