ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জেইর বোলসোনারোকে আবারও জরিমানা গুনতে হলো। মাস্ক না পরেই সাও পাওলোতে মোটরবাইক নিয়ে র্যালি করায় তাকে ১শ ডলার জরিমানা করা হয়েছে। শনিবার তাকে কোভিড-১৯ স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করে, মাস্ক না পরেই একটি র্যালিতে অংশ নিতে দেখা যায়।

ওই সমাবেশে বোলসোনারোর সমর্থকরা জড়ো হয়েছিলেন। তারা সামাজিক দূরত্ব মেনে চলেননি এবং কেউ মাস্ক পরেননি। এমনকি প্রেসিডেন্ট বোলসোনারো নিজেও করোনার বিধি-নিষেধ লঙ্ঘন করেছেন। একজন প্রেসিডেন্টের এমন আচরণ খুবই লজ্জাজনক।

সান পাওলোতে কয়েক হাজার মোটরবাইক নিয়ে র্যালি করেছেন বোলসোনারোর সমর্থকরা। আর এর নেতৃত্ব দিয়েছেন ডানপন্থি নেতা বোলসোনারো নিজেই। সেখানে তিনি স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করেছেন।

ব্রাজিলের বিভিন্ন স্থানে গত কয়েক মাসে এ ধরনের বেশ কয়েকটি র্যালিতে অংশ নিতে দেখা গেছে বোলসোনারোকে। আগামী বছর তিনি নতুন করে নির্বাচনে অংশ নিতে যাচ্ছেন। এর আগে সাও পাওলোর গভর্নর জোয়াও দোরিয়া জানান, প্রেসিডেন্ট বোলসোনারো যদি রাজ্যের স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চলেন তবে তাকে জরিমানা গুনতে হবে।

কোভিড-১৯ স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চলায় দোরিয়া এবং অন্যান্য রাজ্যের গভর্নরদের সঙ্গে বার বার বিরোধে জড়িয়েছেন বোলসোনারো। এর আগেও বেশ কয়েকবার স্বাস্থ্যবিধি না মানায় তাকে জরিমানা গুণতে হয়েছে। কিন্তু এসব যেন তোয়াক্কাই করছেন না এই একরোখা প্রেসিডেন্ট।

এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সংক্রমণে ব্রাজিলের অবস্থান তৃতীয় হলেও মৃত্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের পরেই দেশটির অবস্থান। সেখানে এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৮৫ হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছে।

শুরু থেকেই করোনা মহামারিকে সেভাবে গুরুত্ব দেননি বোলসোনারো। বাড়িতে অবস্থান, ফেস মাস্ক ব্যবহার এবং সামাজিক দূরত্বকে বরাবরই অস্বীকার করে আসছেন তিনি। এই প্রেসিডেন্ট নিজেও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। কিন্তু প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে তাকে কঠোর অবস্থান নিতে দেখা যায়নি।

বিশাল সমাবেশে আবারও মাস্কের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বোলসোনারো বলেন, যারা করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিয়েছেন তিনি তাদের ওপর থেকে মাস্ক পরার বিধি তুলে নেয়ার পরিকল্পনা করছেন।

সাও পাওলোর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তারা মাস্ক না পরা এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে না চলায় বোলসোনারো, তার ছেলে এডুয়ার্ডো এবং অবকাঠামো মন্ত্রী তারকিসিও গোমসকে জরিমানা করেছেন। প্রত্যেককে ব্রাজিলের টাকায় ৫৫২ দশমিক ৭১ রিয়েস অথবা ১০৮ ডলার জরিমানা দিতে হবে।