চলতি বছরের রমজানে যারা ওমরাহ পালন করতে চান তাদের জন্য সুখবর দিল মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব। দেশটির হজ এবং ওমরাহ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ বছর ওমরাহ পালন করার জন্য ভ্যাকসিন দেয়া বাধ্যতামূলক নয়। খবর আরব নিউজ।

টুইটারে ভ্যাকসিন নেয়ার বিষয়ে প্রশ্নোত্তরে মন্ত্রণালয়ের কাস্টমার সার্ভিস সেন্টারের একাউন্ট থেকে জানানো হয়েছে, এ বছর রমজানে ওমারহ করার অনুমতি পেতে ভ্যাকসিন দেয়া বাধ্যতামূলক করা হয়নি।

চলতি সপ্তাহের শুরুতে একটি সার্কুলার জারি করেছে মন্ত্রণালয়। সেখানে বলা হয়েছে, রমজান শুরুর আগে আগামী ১২ এপ্রিল হজ ও ওমরাহ’র দায়িত্বে থাকা সব কর্মীকে ভ্যাকসিন প্রদান করা হবে। যেসব কর্মী ভ্যাকসিন নেবেন না তাদের অবশ্যই পিসিআর টেস্টের নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে এবং প্রতি সপ্তাহে একবার করে এই টেস্ট করতে হবে।

এদিকে, সৌদির পৌর, পল্লী এবং আবাসন বিষয়ক মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, রমজানের সময় যেসব স্থানে জনসমাগম হতে পারে সেখানে সামাজিক দূরত্ব কঠোরভাবে নিশ্চিত করা হবে।

ইতোমধ্যেই সৌদির ছয় অঞ্চলের ১১টি মসজিদ বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। নামাজ পড়তে আসা ১১ জনের দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়ার পরই এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সৌদির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে ৫৮৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। বর্তমানে সেখানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৫ হাজার ২৫৫। এর মধ্যে ৬৯৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৯০ হাজার ৭।

রিয়াদে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৩৪। মক্কায় ১০৩ এবং পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশে ১১০। সবচেয়ে কম সংক্রমণ নাজরান এবং বাহায়। দুই স্থানেই একদিনে আক্রান্ত হয়েছে পাঁচজন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছে ৩৬৯ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছে ৩ লাখ ৭৮ হাজার ৮৩ জন। দেশটিতে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা ৯৬ দশমিক ৯ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে এখন পর্যন্ত সৌদিতে মারা গেছে ৬ হাজার ৬৬৯ জন।