মহেশ্বরপাশা আর্ট স্কুলের সমস্যার সমাধান সভায় শ্রম প্রতিমন্ত্রী

খুলনা মহানগরীর দৌলতপুরে শিল্পী-শিক্ষক শশিভূষণ পাল প্রতিষ্ঠিত মহেশ্বরপাশা আর্ট স্কুলের ঐতিহ্যবাহী পুরাতন  ভবন এর আয়ূস্কাল এবং সংস্কারযোগ্য কিনা তা নির্ধারণের জন্য কারিগরি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গতকাল (মঙ্গলবার) রাতে খুলনা সার্কিট হাউজের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত এক জরুরি  সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।

জেলা প্রশাসক মো: মনিরুজ্জামান তালুকদার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় গণপূর্ত অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলীকে প্রধান করে একটি কারিগরি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যগণ হলেন খুলনা সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের একজন অধ্যাপক, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী এবং প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের আঞ্চলিক পরিচালক।

কারিগরি কমিটি আগামী ৩১ মার্চের মধ্যে জেলা প্রশাসকের নিকট তাদের প্রতিবেদন জমা দিবেন। কারিগরি কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বিদ্যমান পরিত্যক্ত ভবনের কি করা হবে।

দৌলতপুরে শশিভূষণ পাল প্রতিষ্ঠিত মহেশ্বরপাশা আর্ট  স্কুল এর জরাজীর্ণ পুরাতন ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় পরিত্যক্ত ঘোষণা করে খুলনা সিটি কর্পোরেশন। সিটি কর্পোরেশনের এ ঘোষণার প্রেক্ষিতে খুলনার নাগরিক সমাজ এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ভবনটি সংস্কার এবং মহেশ্বরপাশা আর্ট স্কুলের ঐতিহ্য সংরক্ষণের দাবী জানিয়ে আসছিলো। উল্লেখ্য ঝুঁকিপূর্ণ এ ভবন এলাকায় শশিভূষণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শশিভূষণ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং শশিভূষণ বিদ্যানিকেতন অবস্থিত।

সভায় অন্যানের মধ্যে খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, দৌলতপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ সৈয়দ আলী, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের আঞ্চলিক পরিচালক আফরোজা খান মিতা, বিভাগীয় শ্রম দপ্তরের পরিচালক মো. মিজানুর রহমান, খুলনা মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মোঃ আলমগীর কবির, শশিভূষণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মাহফুজা আহমেদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট খুলনার সভাপতি হুমায়ূন কবির ববি, সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম সেলিমসহ নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।