সোমবার (২১ জুন)। উত্তর গোলার্ধের সবচেয়ে বড় দিন।ফলে সূর্য সবচেয়ে বেশি সময় ধরে কিরণ দেবে পৃথিবীর এ অংশে।

কর্কট ক্রান্তি রেখা আর মকর ক্রান্তি রেখা দু’টির মধ্যে কর্কট ক্রান্তি রেখা দিন কতটা বড় হবে তা নির্ধারণ করে থাকে।

২১ জুন কর্কট ক্রান্তি রেখা সূর্যের দিকে ঝুঁকে থাকে তাই কিরণ পায় বেশি। এজন্য দিনও লম্বা হয়। আজকে দিনে সূর্য কিরণ থাকবে ১৩ ঘণ্টা ৩৬ মিনিট ৮ সেকেন্ড।

পৃথিবী বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন নামে এ দিনটিকে ডাকা হয়। কোথাও বলে কর্কট ক্রান্তি দিবস। কোথাও আবার অয়ন দিবস নামেও ডাকা হয়। ইউরোপে বা ইংরেজিতে দিবসটিকে বলা হয় সামার সলিস্টিস। ল্যাটিন শব্দ sol এবং sisterer থেকে এসেছে সলিস্টিস (solstice)। এখানে সোল শব্দের অর্থ সূর্য ও সিস্টারার শব্দের অর্থ এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকা।

উত্তর গোলার্ধে সোমবার দুপুর ১২টায় সূর্য থাকবে ঠিক কর্কট ক্রান্তি রেখার উপরে। বাংলাদেশের উপর দিয়েও গেছে এ কর্কট ক্রান্তি রেখা। ফলে দুপুর ১২টায় বাইরে দাঁড়ালে কোনো ছায়া পড়বে না।

আকাশ পরিষ্কার থাকলে বাংলাদেশের মানুষও এ সুন্দর প্রাকৃতিক বিস্ময়টি উপভোগ করতে পারবেন।

উত্তর গোলার্ধে সূর্য সোমবার বেশি সময় ধরে কিরণ দেওয়ার কারণে দক্ষিণ গোলার্ধে কিন্তু স্বভাবতই দিন হবে সবচেয়ে ছোট।

আজকের পর থেকেই দিন ক্রমান্বয়ে ছোট হতে থাকবে। আর রাত হতে থাকবে বড়। এর পর ২৩ সেপ্টেম্বর সূর্য অবস্থান করবে বিষুব রেখার উপর। সেদিন পৃথিবীর সবখানের রাত-দিন সমান হয়ে যাবে।

২১ ডিসেম্বর সূর্য অবস্থান করবে মকর ক্রান্তি রেখার উপর। তখন দক্ষিণ গোলার্ধে ওইদিন সবচেয়ে বড় দিন হবে। আর উত্তর গোলার্ধে হবে সবচেয়ে বড় রাত। সেদিন থেকে রাত আবার ছোট হতে থাকবে।