প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সব ধর্মের মানুষের কল্যাণে কাজ করছে।  জাতির পিতার স্বপ্ন ছিল এমন এক অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করা যেখানে সব ধর্মের মানুষের সমান অধিকার থাকবে। তার নীতি অনুসরণ করেই আমরা সকলের জন্য কাজ করছি।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ এমন একটি দেশ যেখানে সব ধর্মের মানুষ সমান অধিকার ভোগ করছে এবং আপনারা সবাই সমান অধিকার নিয়েই বসবাস করছেন। শুধু আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই বাংলাদেশের প্রত্যন্ত গ্রামে এখন উন্নয়নের চিত্র ভেসে উঠেছে। গৃহহীনদের মাঝে প্রথমে প্রায় ৭০ হাজার ও পরে ৫৩ হাজার ৩৪০ অসহায় পরিবারের মাঝে জমি ও ঘর বিতরণ করা হয়েছে। যা ইতিহাসে বিরল।বাঙালি জাতির মুক্তি ও অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে ঢাকার কে এম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে ১৯৪৯ সালের ২৩শে জুন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হয়। জেলে বন্দি থাকা অবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংগঠনে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ ভূখণ্ডে প্রতিটি প্রাপ্তি ও অর্জন সবই আওয়ামী লীগের নেতৃত্বেই হয়েছে। 
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রূপসা, তেরখাদা ও দিঘলিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে আজ বুধবার (২৩ জুন) বিকালে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে একথা বলেন।
জেলা আওয়ামীলীগের সদস অধ্যক্ষ ফ ম আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন, জেল আওয়ামীলীগের সাবেক সদস্য আ:মজিদ ফকির, ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব আজাদ আবুল কালাম, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম আহবায়ক মো:মোতালেব হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আরিফুর রহমান মোল্লা, সৈয়দ মোরশেদুল আলম বাবু, শাহাজাহান কবীর। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এমপির প্রতিনিধি এস এম হাবিবের পরিচালনায় বক্তৃতা করেন ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা আফরোজ মনা, এমপির চীপ কো-অডিনেটর যুবলীগ নেতা নোমান ওসমানী রিচি, দপ্তর সম্পাদক আকতার ফারুক,ক্রীড়া সম্পাদক স ম জাহাঙ্গীর, ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেন বুলবুল, জাহাঙ্গির শেখ,প্রভাষক অহিদুজ্জামান, উপজেলা যুবমহিলীগের সাধারণ সম্পাদক শারমিন সুলতানা রুনা, বিনয় হালদার, সাবেক চেয়ারম্যান এমপির প্রতিনিধি ওয়াহিদুজ্জামান মিজান, আজিজুল হক কাজল,আজমল ফকির, সুব্রত বাগচী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি রুহুল আমিন রবি, দ্বীনবন্ধু, আওয়ামীলীগ নেতা নাজির শেখ, যুবলীগনেতা  আ:মজিদ শেখ,সামসুল আলম বাবু, আবুল কালাম,শিমুল শেখ, ছাত্রলীগ নেতা এস এম রিয়াজ।তেরখাদা থেকে আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ শারাফাত হোসেন মুক্তি, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান এফ এম অহিদুজ্জামান, সাধারন সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান কে এম আলমগীর হোসেন, আ’লীগ নেতা শেখ রাজা মিয়া, শেখ তবিবুর রহমান, এম ফরিদ আহমেদ, মোল্যা জিয়াউর রহমান, আব্বাস মোল্যা, বাদশা মল্লিক, বাছিতুল হাবিব প্রিন্স, আরিফুজ্জামান অরুন, ইদু বিশ্বাস, এফ এম তৌহিদুল ইসলাম, স্বেচ্চাসেবক লীগ নেতা খান ফরাদুজ্জামান সুমন, ছাত্রলীগ নেতা শেখ হুসাইন আহমেদ, প্রমুখ।
দিঘলিয়া থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোল্লা আকরাম হোসেনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফারহানা নাজনীন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও উপজেলা মহিলা লীগের সভাপতি মোসাম্মৎ শামসুন্নাহার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইউনুছ আলী মাস্টার, প্রচার সম্পাদক খান হাবিবুর রহমান বিপুল, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সাহেব আলী হুজুর, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক গাজী জাকির হোসেন, সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ আনসার আলী, সাধারণ সম্পাদক মুন্জুর হোসেন, সেনহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ মিজানুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য  কে এম আসাদুজ্জামান, উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক খান আবু সাঈদ, জেলা যবলীগ নেতা সেলিম মল্লিক, উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শেখ আনিসুর রহমান, সহ-সভাপতি শেখ রিয়াজ হোসেন, সহ সম্পাদক সাইদুর রহমান, সহ-সম্পাদক রাকিব মোড়ল, উপজেলা যুবলীগ সদস্য মোঃ হাবিবুর রহমান তারেক, সদর ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক শেখ শাহাবুদ্দিন, জেলা ছাত্রলীগ নেতা নাহিদ জুম্মান জেড,সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক সৈয়দ জামিল হোসেন মাসুম, ইউনিয়ন মহিলা লীগের সভাপতি পাখি বেগম, ছাত্রলীগ নেতা আল-আমিন শেখ, উপজেলা মহিলা যুবলীগ নেত্রী স্বর্ণালী খাতুন, সদর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ এর  সভাপতি সেখ জুবায়ের হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মিন্টু মুন্সি, রেজোয়ান, রাজিব, রাসেল প্রমুখ।