করোনা থেকে মুক্ত হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ভারতীয় কিংবদন্তী ক্রিকেটার শচিন টেন্ডুলকার। আজ টুইটবার্তার মাধ্যমে এ তথ্য নিজেই জানিয়েছেন শচিন।

গত ২ এপ্রিল কোভিড-১৯ পজিটিভ রিপোর্ট আসে শচিন টেন্ডুলকারের। এরপর প্রাথমিক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে হসাপাতালে ভর্তি হন শচিন। এরপর গত ৬দিন হাসপাতালেই কাটান তিনি। অবশেষে আজ হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে মুম্বাইতে নিজের বাসায় চলে যান শচিন। তবে সেখানে তিনি আরও কয়েকদিন আইসোলেশনে থাকবেন।

এই মাসেই ৪৮তম জন্মদিন পালন করবেন শচিন টেন্ডুলকার। এরমধ্যেই করোনাআক্রান্ত হয়েছেন তিনি। টুইটারে শচিন লিখেন, ‘আমি এইমাত্র হাসপাতাল থেকে বাড়িতে এসে পৌঁছালাম। তবে বাড়িতে আমি আইসোলেশনেই থাকবো। এই সময়ে আমাকে সুস্থ হতে বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।’

সমর্থকদের উদ্দেশ্যে শচিন লেখেন, ‘আমার যারা শুভাকাঙ্খী ছিলেন, যারা আমার জন্য প্রার্থনা করেছেন, সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ। তাদেরকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। এছাড়া হাসপাতালে যারা আমার চিকিৎসাসেবায় পরিশ্রম করে গেছেন, সবাইকে ধন্যবাদ।

গত মার্চেই রায়পুরে শচিন টেন্ডুলকার রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজ চ্যালেঞ্জে খেলেছিলেন। ইন্ডিয়া লিজেন্ডের হয়ে খেলতে নামেন তিনি এবং ভারতকে শিরোপা জেতান। এর এক সপ্তাহ পরই করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে তার। শচিন একা নন, তার সঙ্গে খেলা ইরফান পাঠান, ইউসুফ পাঠান এবং এস বদরিনাথও করোনা আক্রান্ত হন।